টিপস ও ট্রিকস

জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্য সংশোধন প্রক্রিয়া

প্রতিটি সুনাগরিকের জন্য এনআইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয়পত্র খুবই গুরুত্বপূর্ণ আর এনআইডি কার্ডটি নির্ভুল হতে হবে। জাতীয় পরিচয়পত্রে উল্লেখ্যিত নিজের নাম,মাতা-পিতার নাম, জন্ম তারিখ,ঠিকনা কিংবা স্বামী- নাম যদি পরিবর্তন করার যদি প্রয়োজন মনে করেন। আর যদি আপনি না জানেন কিভাবে পরিবর্তন করতে হয়। তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি শুধু আপনার জন্য। জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য সংশোধন প্রক্রিয়া

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করবেন কিভাবে তার উপায় এবং জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করবেন কিভাব সে বিষয়ে বিস্তারিত বলার চেষ্টা করবো আর্টিকেল জুড়ে।

 

 

অনেক সময় দেখা যায় একটা মেয়ে যখন পিত্রালয়ে থাকাকালীন সময়ে পিতার-মাতার নাম দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রটি ক্রিয়েট করে। আর যখন মেয়েটির বিয়ে হয়ে যায় তখন তাকে স্বামীর পরিচয় দিয়ে কিন্তু জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করতে হয়।

 

 

জাতীয় পরিচয় পত্র খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  কারণ, একজন সুনাগরিকের দেশের ভিতরের প্রায় অধিকাংশ কাজেই জাতীয় পরিচয় পত্রের মাধ্যমে সম্পাদন হয়ে থাকে। কাজেই জাতীয় পরিচয় পত্র নির্ভুল ভবে উত্তোলন করা উচিত।

এনআইডি কার্ডটি সংশোধন করুন

আপনি চাইলে খুব সহজেই অনলাইনে আপনার এনআইডি কার্ডটি সংশোধন করতে পারবেন। আর তার জন্য এনআইডি পোর্টেলে ঢুকে রেজিষ্ট্রেশন প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে। তার জন্য প্রয়োজন হতে পারে এনআইডি নাম্বার ও জন্ম তারিখ,এসব তথ্য দিয়ে সাবমিট করুন। আরও যদি তথ্য জানতে চায় সেগুলো দিলে একাউন্ট তৈরি হয়ে যাবে এবং তা লগইন করা যাবে।

পূর্বে যদি আপনি লগইন করে থাকেন তাহলে শুধু ব্যবহারকারীর নাম ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন।

 

 

এ পর্যায়ে আপনি একটি ইন্টারফেস দেখতে পারবেন। এরপর আপনার প্রোফাইলে গেলে ব্যক্তিগত তথ্য গুলো দেখতে পারবেন। আপনি ডানপাশের এডিট অপশনটি দেখেন সেখানে আপনি সংশোধন করতে পারবেন। এর জন্য আপনার চার্জ প্রযোজ্য হবে।

 

 

 

এনআইডি কার্ডের তথ্য গুলো সংশোধন করার জন্য প্রথমবার ২০০ টাকা, দ্বিতীয়বার ৩০০ টাকা এবং চতুর্থবারে জন্য ৪০০ টাকা ফি প্রদান করতে হবে। আর যে তথ্যগুলো লেখা থাকে  না তার জন্য প্রথমে ১০০ টাকা আর পরবর্তীতে ৩০০ টাকা ফি দিয়ে সংশোধন করতে পারবেন।

ফি প্রদানের মাধ্যম 

ক.ফাস্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক।

খ. বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক।

গ. ট্রাস্ট ব্যাংক লিঃ এবং টি-ক্যাশ মোবাইল ব্যাংকিং।

ঘ. ডাচ্-বাংলা এবং রকেট মোবাইল ব্যাংকিং।

ঙ. ওয়ান ব্যাংক লিঃ এবং ওকে ওয়ালেট মোবাইল ব্যাংকিং।

চ. মিচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক।

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধনের জন্য যেসব কাগজের প্রয়োজন 

নাম সংশোধন করার জন্য প্রয়োজন জন্ম নিবন্ধন কার্ড,এসএসসি বা এইচএসসির সনদপত্র, পাসপোর্টের কপি। ঠিকনা পরিবর্তনের জন্য প্রয়োজন বিদ্যুৎ বিলের কাগজ,পানি বিলের কাগজ যেকোনো একটি। স্বামীর নাম যোগ করতে যা প্রয়োজন হবে নিকহনামার কাগজ,স্বামীর ন্যাশনাল আইডি কার্ড।

 

 

 

যদি আরো কোনো কিছু সংশোধন করার প্রয়োজন হয়ে থাকে তাহলে তা ওয়েবসাইট থেকে জানতে পারবেন।  তথ্য সমূহ যদি সঠিক ভাবে সংশোধনের অনুমোদন পায় তাহলে আপনার মোবাইল নাম্বারে একটি ফিরতি মেসেজ আসবে। আপনার ন্যাশনাল আইডি কার্ডটি পিন্ট করে নিয়ে সংরক্ষণ করতে পারেন।

 

 

 

যারা ইন্টারনেট ব্রাউজিং সম্পর্কে অজ্ঞাত তারা ন্যাশনাল আইডি কার্ডটি নিয়ে নিকটস্থ উইং থানা/উপজেলা পরিষদ বা জেলা নির্বাচন অফিস থেকে সংশোধনের জন্য আবেদন করতে পারেন। উল্লেখ্যিত কাগজপত্র সংশোধনের জন্য আবেদন উপযুক্ত। তাই কাগজপত্র সাথে নিয়ে ন্যাশনাল আইডি সংশোধন করবেন। জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্য সংশোধন প্রক্রিয়া

শেষ কথা 

সম্মানিত ভিউয়াস, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ আমার আর্টিকেলটি পড়ার জন্য।  আর হ্যাঁ, আমার আর্টিকেলটি পরে যদি আপনি একটুও উপকৃত হন, তাহলে আমি নিজকে ধন্য মনে করবো। আমি প্রতিনিয়ত চেষ্টা করি নতুন নতুন বিষয়ে আর্টিকেল লেখার। তাই আপনারা যারা আপডেট কোনো বিষয় সম্পর্কে জানতে চান তারা প্রতিনিয়ত আমার সাইটে ভিজিট করতে পারেন।  আপনার যদি কোন বিষয় সম্পর্কে জানার আগ্রহ থাকে। তাহলে আপনারা কমেন্ট সেকশনে কমেন্টের মাধ্যমে বলতে পারেন। আমি যথাসাধ্য চেষ্টা করবো সে বিষয় নিয়ে আর্টিকেল লেখার। জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্য সংশোধন প্রক্রিয়া

Related Articles

Back to top button